Take a fresh look at your lifestyle.

ভোটার উপস্থিত করার দায়িত্ব প্রার্থীর

১৭৩

 কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিত করানো প্রার্থীদের দায়িত্ব বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. আহসান হাবিব খান।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-২০২৪ উপলক্ষে বরিশাল, পটুয়াখালী ও ভোলা জেলার নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে মতবিনিময় সভা শেষে রোববার (২৬ নভেম্বর) দুপুরে বরিশাল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

ইসি আহসান হাবিব বলেন, ভোটার উপস্থিতির দায়িত্ব হচ্ছে প্রার্থীর। আর আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্ব হচ্ছে তাদের নিরাপত্তা দেওয়া। যাতে করে ভোটাররা বাসা থেকে ভোটকেন্দ্র পর্যন্ত নির্বিঘ্নে আসতে পারেন এবং নিজের ভোট দিতে পারেন। আমাদের আইনে রয়েছে জেলা প্রশাসক রিটার্নিং কর্মকর্তাকে সর্বপরি সাহায্য-সহযোগিতা করবেন কিন্তু এখানে জেলা প্রশাসকই রিটার্নিং অফিসার হওয়ায় তিনিই তাকে সহায়তা করবেন। আর তার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারাই সহকারী রিটার্নিং অফিসার। তারা এর আগে নির্বাচনের কাজ করেছেন, এবারেও করবেন।

নির্বাচন কমিশনার আরও বলেন, নির্বাচন প্রস্তুতি ও চ্যালেঞ্জেস কেমন সেটা দেখতে এখানে এসেছি। এখানে বিভাগীয় প্রশাসনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা আছেন। তারা সবাই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ এবং আমাদের আশ্বস্ত করেছেন যে সামনের নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য হবে। আমাদের সব দায়-দায়িত্ব রিটার্নিং অফিসারকে দিয়ে দিচ্ছি, এই রিটার্নিং অফিসার শতভাগ তাদের দায়িত্ব পালন করবেন, ভালো হলে শতভাগ ক্রেডিট তাদের, ভুল হলে ডিসক্রেডিটও তাদের।

বিএনপি নির্বাচনে এলে ভোটের তারিখ পেছানোর সম্ভাবনা রয়েছে কি না জানতে চাইলে ইসি আহসান হাবিব বলেন, তারা তো এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে আসেনি, যখন আসবে এবং আমাদের বলবে। তখন আমরা কমিশনে বসবো, আর তখন কতটুকু সময় বাকি আছে বা অন্য কি আছে তা নিয়ে বিবেচনা করে সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নেবো। তবে আমরা সবাই আন্তরিক। আমি ব্যক্তিগতভাবে তাদের সাথে কথা বলেছি, আমরা আনুষ্ঠানিক-অনানুষ্ঠানিকভাবে তাদের দাওয়াত দিয়েছি। তারপরও এখন এলেও কোনো সমস্যা নেই।

তিনি বলেন, আমাদের পরিচালনা বিধিতে প্রতিটি করণীয়সহ সবকিছু লেখা রয়েছে, কোনো ব্যত্যয় ঘটলে ছাড় দেওয়া হবে না। আমি বিশ্বাস করি কোনো ব্যত্যয় হবে না। কারণ নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা সবাই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, আর তারা প্রতিনিয়ত শতভাগ আশ্বস্তও করে যাচ্ছে। আপনাদের (সাংবাদিকদের) চোখে কিছু পড়লে তুলে ধরুন আমরা ব্যবস্থা নেবো। নির্বাচনের আগেই আমরা গুরুত্বপূর্ণ এলাকা গুলোকে শনাক্ত করতে কাজ করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। আমাদের সুষ্ঠু নির্বাচনের কোনো ত্রুটি থাকবে না।

সেনা মোতায়েনের বিষয়ে তিনি বলেন, আগের প্রতিটি নির্বাচনে সেনা মোতায়েন হয়েছে, এবারের বিষয়ে আমাদের সামনে একটা সভা রয়েছে। সেখানে কার্যপরিধি নির্ধারণ করা হবে, আর সিদ্ধান্তটা পরবর্তীতে আলোচনা করে নেওয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.