Take a fresh look at your lifestyle.

বরিশাল সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি নিয়ে পাল্টাপাল্টি কমিটি

১৪১
একশ বছর হয়েছে বরিশাল সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের। শতবর্ষ পূর্তি উদযাপন ও  পুনর্মিলনী করতে সাবেক শিক্ষার্থীরা পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি নিয়ে উদযাপন কমিটি গঠন করেছে।
প্রথম উদ্যোগে ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বরিশাল সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সাধারণ সভায়  প্রফেসর শাহ্ সাজেদা ও তানিয়া আনজুমান্দ ববি কে সদস্য সচিব করে কমিটি গঠন করা হয়।এ কমিটি ২০২৪ সালে প্রথম মাসে শতবর্ষ উদযাপন  অনুষ্ঠান করার লক্ষ্য নিয়ে নিবন্ধন শুরু করে। দুই মাস ব্যাপী অনলাইন ও অফলাইনে নিবন্ধন মূল্য ২০০০ টাকা করে প্রায় ২০০০ সাবেক শিক্ষার্থী নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করে মাসের ৩১ তারিখ। এরপর পেজ এর মাধ্যমে ম্যাগাজিন এর জন্য লেখা আহবান করে।
নানান রকমের অসংগতি ও অভিযোগে আগের কমিটির বিরোধিতা করে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসের ২৮ তারিখ রবিবার বিকেলে বরিশাল নগররী বগুড়া রোডে ঝালকাঠি সদর আসনের এমপি আমির হোসেন আমুর বাস ভবনে  বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সুলতানা নাদিরা জলিকে আহবায়ক ও  বেগম তফাজ্জেল হোসেন মানিক মিয়া মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক সানজিদা শাহনেওয়াজ লিজাকে সদস্য সচিব করে ১০৪ সদস্যের কমিটি গঠন কর ঘোষণা করা হয়। কমিটিতে যুগ্ম আহবায়করা হলেন- প্রাক্তন প্রধান শিক্ষিকা উম্মে বিলকিস, প্রফেসর শাহ্ সাজেদা, ডাঃ খালেদা খানম, সাবেক সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ, বিলকিস জাহান শিরিন ও জান্নাতুন্নেছা নয়ন।তবে আগের কমিটির আহবায়ক প্রফেসর শাহ্ সাজেদাকে এ কমিটির যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে।
নতুন কমিটির আহ্বায়ক ও বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সুলতানা নাদিরা বলেন বরিশাল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ঐতিহ্যবাহী একটি প্রতিষ্ঠান শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানের জন্য আগামী ডিসেম্বর সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারত করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে আমরা কোন বিভেদ চাই না, সকলে মিলেমিশে আমরা একটি সুন্দর অনুষ্ঠান উপহার দিতে চাই।
সদস্য সচিব সানজিদা শাহনেওয়াজ লিজা  বলেন শতবর্ষ পূর্তি পুনর্মিলনী উদযাপন উপলক্ষে এর আগে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিলো কিন্তু সেখানে আহবায়ক সহ দায়িত্বশীল কয়েকজনের দায়িত্ব অবহেলার কারনে আমরা সকলের সাথে সমন্বয় করে এই কমিটি গঠন করেছি। আমরা অতীতের কমিটির অসঙ্গতি নিয়ে বেশ কয়েকবার আহবায়কে অবহিত করেছি সংশোধন করার জন্য কিন্তু ওনি কোনো ব্যবস্থা গ্রহন করেননি। তাই সিনিয়র প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে সভা করেছি যাতে আমরা একটি সুন্দর অনুষ্ঠান উপহার দিতে পারি। আমরা কারো সাথে দ্বন্ধ চাই না, আমরা সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করতে চাই তবে ঐ কমিটির আহবায়কসহ কোন নেতৃত্ব আমাদের সাথে সমন্বয় করছে না। যদি তারা সমন্বয় না করে তাহলে আমরা সদস্যদের সাথে সভায় আগামীর কার্যক্রম নির্ধারন করবো।
কমিউনিকেশন মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক সাইফুন নাহার পপি বলেন আগের কমিটির নিবন্ধন কমিটির সদস্য ছিলাম কিন্তু নিবন্ধন তথ্য প্রকাশ করে না এবং কিছু নির্দিস্ট শিক্ষার্থী  নিয়ে ঐ কমিটি কাজ করছে যা সর্বজনীন নয়। তাই  আমরা একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করতে পেরেছি আশাবাদী সকলের সঙ্গে সমন্বয় করে আমরা সুন্দর অনুষ্ঠান উদযাপন করতে পারবো।
শতবর্ষ পূর্তি প্রথম কমিটির সদস্য সচিব তানিয়া আনজুমান্দ ববি ফোনে বলেন আমি এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে এখন অপ্রস্তু আপনার সাথে পরে যোগাযোগ করবো।
এদিকে বরিশাল সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদযাপন নিয়ে দুটি কমিটি হওয়া ও তাদের কার্যক্রম নিয়ে তৈরি হয়েছে অনুষ্ঠানসহ নানা রকমের শঙ্কা।
নতুন কমিটির সাধারণ সভায় অনুরোধ করে শাহ সাজেদাকে উল্লেখ করে ৯ টি বিষয় নিয়ে চিঠি দিয়ে অনুরোধ করা হয়। চিঠির অনুলিপি বরিশাল  সিটি মেয়র,বরিশাল সদর-৫ আসনের এমপি, জেলা প্রশাসক,সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়সহ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে দেয়া হয়।
বুধবার রাতে প্রফেসর শাহ্ সাজেদা এক ভিডিও বার্তায় নিবন্ধনকৃতদের উদ্দেশ্য বলেন  আমাদের নিবন্ধন শেষ হবার পর কিছু কুচক্রী মহল
বিভিন্ন স্তরে ভ্রান্ত ধারনা, কুৎসা, মিথ্যা বানোয়াট কাহিনী প্রচার করছে। যা সম্পূর্ণ অপ্রচার। এসব অপ্রচারে বিভ্রান্ত না হতে আপনাদের প্রতি সবিনয় আবেদন থাকলো।আমরা সবার মতামতকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে যত দ্রুত সম্ভব আয়োজন করবো।
সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুবা হোসেন শতবর্ষ উদযাপন ও পুনর্মিলনী বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উদ্যাোগের আয়োজন এতে বিদ্যালয় যুক্ত নয়। দুটি উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়েছে শুনেছি। ভেন্যু হিসেবে চাইলে বিদ্যালয় ব্যবহার করতে পারবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.