Take a fresh look at your lifestyle.

বরিশালের ৬টি আসনে ৩৫ প্রতিদ্বন্দ্বির প্রতীক বরাদ্দ

১৮০

বরিশাল জেলার ৬টি সংসদীয় আসনে ৩৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বির মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এই প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম। বিভিন্ন জোট ও দলের প্রার্থীরা নির্ধারিত প্রতীক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পেয়েছেন পছন্দের প্রতীক। তবে ঈগল প্রতীক পেতে অধিক আগ্রহ ছিলো প্রার্থীদের। বারিশাল-৬ আসনে ঈগল প্রতীক পেতে ৩ প্রার্থীর মধ্যে লটারি করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

বরিশাল-১ (গৌরনদী-আগৈলঝাড়া) আসনে আওয়ামী লীগের আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ নৌকা, জাতীয় পার্টির ছেরনিয়াবাত সেকেন্দার আলী লাঙ্গল ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) মো. তুহিন পেয়েছেন আম প্রতীক।

বরিশাল-২ (উজিরপুর-বানারীপাড়া) আসনে ১৪ দলের শরীক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন পেয়েছেন নৌকা প্রতীক। এছাড়া তৃনমূল বিএনপি’র মো. শাহজাহান সিরাজ সোনালী আঁশ, আওয়ামী লীগের দুই বিদ্রোহী যথাক্রমে সাবেক এমপি মো. মনিরুল ইসলাম ঢেকি ও একে ফাইয়াজুল হক ঈগল, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নকুল কুমার বিশ্বাস গামছা, জাতীয় পার্টির মো. ইকবাল হোসেন লাঙ্গল এবং ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (এনপিপি) সাহেব আলী পেয়েছেন আম প্রতীক।

 

বরিশাল-৩ (বাবুগঞ্জ-মুলাদী) আসনে জাতীয় পার্টির গোলাম কিবরিয়া টিপু লাঙ্গল, ওয়ার্কার্স পার্টির টিপু সুলতান হাতুরী, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের মো. আজমুল হাসান জিহাদ ছড়ি, তৃনমূল বিএনপি’র মো. শাহনাজ হোসেন সোনালী আঁশ এবং আওয়ামী লীগের দুই বিদ্রোহী যথাক্রমে মো. আতিকুর রহমান ট্রাক ও মো. আমিনুল হক পেয়েছেন ঈগল প্রতীক।

বরিশাল-৪ (হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ) আসনে জাতীয় পার্টির মো. মিজানুর রহমান লাঙ্গল, আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী পংকজ নাথ ঈগল ও বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের হৃদয় ইসলাম চুন্নু পেয়েছেন ছড়ি প্রতীক।

বরিশাল-৫ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের জাহিদ ফারুক নৌকা, জাতীয় পার্টির ইকবাল হোসেন লাঙ্গল, ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (এনপিপি) আবদুল হান্নান সিকদার আম, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মাহাতাব হোসেন ডাব, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের মো. আসাদুজ্জামান ছড়ি এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মো. সালাহ উদ্দিন রিপন পেয়েছেন ট্রাক প্রতীক।

বরিশাল-৬ (বাকেরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের আবদুল হাফিজ মল্লিক নৌকা, তৃণমূল বিএনপি’র টিএম জহিরুল হক তুহিন সোনালী আঁশ, জাতীয় পার্টির নাসরিন জাহান রতনা লাঙ্গল, জাসদের মোহাম্মদ মোহসীন মশাল, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. মাইনুল ইসলাম ডাব, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) মো. মোশারফ হোসেন আম এবং আওয়ামী লীগের ৪ বিদ্রোহী যথাক্রমে মোহাম্মদ শামসুল আলম ট্রাক, মো. কামরুল ইসলাম খান তরমুজ, মো. জাকির খান সাগর রকেট, মো. শাহাবাজ মিঞা পেয়েছেন ঈগল প্রতীক।

এই আসনে স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দর সময় ৩ জন ঈগল প্রতীক দাবি করেন। পরে লাটারির মাধ্যমে শাহাবাজ মিঞাকে ঈগল প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

বরিশালের রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম জানান, বরিশালের ৬টি সংসদীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী ৩৫ জনের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এখন থেকে তারা বিধি মেনে প্রচারণা চালাতে পারবেন। কেউ প্রচারণায় আইনের ব্যতয় ঘটালে তার বিরুদ্ধে নির্বাচনী আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে প্রতীক বরাদ্দের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করার পর নির্বাচনে কমিশনের আপীল শুনানীতে মনোনয়ন বাতিল হয়ে উচ্চ আদালতে ফের প্রার্থীতা ফিরে পাওয়া সাদিক আবদুল্লাহর আইনজীবীরা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে প্রতীক বরাদ্দ আনতে যান। তবে তারা উচ্চাদালতের কোন সার্টিফায়েড কপি দেখাতে না পাড়ায় তাদের প্রতীক বরাদ্দ দেননি রিটার্নিং কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাদিক আবদুল্লাহ’র আইনজীবী একেএম জাহাঙ্গীর বলেন, উচ্চাদালতের আদেশের পর কিছু আনুষ্ঠানিকতা প্রয়োজন। এ জন্য কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.