Take a fresh look at your lifestyle.

পঙ্কজের নির্বাচনী অফিসে ভাঙচুর

৫৪

বরিশালের হিজলা উপজেলায় দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য পঙ্কজ নাথের নির্বাচনী অফিসে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় তার এক সমর্থককে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে।

শনিবার ২৩ ডিসেম্বর দিনগত রাত ও রোববার (২৪ ডিসেম্বর) ভোরে হিজলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের টেকেরহাট বাজার এবং ধূলখোলা ইউনিয়নের আলীগঞ্জ বাজার ও সংলগ্ন এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে।

আহত অহিদ সরদার ও তার স্বজনরা জানান, গত রাতে আকস্মিক সন্ত্রাসীরা বড়জালিয়া ইউনিয়নের টেকেরহাট বাজারে ঈগল প্রতীকের নির্বাচনী অফিসে হামলা চালায়। এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হন অহিদ।

রোববার সকালে ধূলখোলা ইউনিয়নের আলীগঞ্জ বাজারে পঙ্কজ নাথে অনুসারীরা লিফলেট বিতরণ করার পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচারণার কাজ চালাচ্ছিলেন। এ সময় ঈগল প্রতীকের কর্মীদের ওপর আকস্মিক লাঠিসোঁটা ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালানো হয়। সেই সঙ্গে আলিগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদের বাড়িও ভাঙচুর করা হয়।

এ এলাকার পঙ্কজ নাথের অনুসারীদের দাবি, ভোটার না হয়েও জামাল ঢালী, রবি ঢালী, সালাউদ্দিন, নিজাম, রফিকসহ একটা পক্ষ ধূলখোলায় দীর্ঘদিন ধরে শাম্মী আহমেদের অনুসারী বলে প্রভাব দেখিয়ে আসছেন এবং আজ তারা এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছেন।

আলিগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদ জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাজারে আমরা ঈগল প্রতীকের প্রচারণার কাজ শুরু করি। তখন আকস্মিক ৪০-৫০ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। সে সময় মামুন নামে ঈগল প্রতীকের এক কর্মী গুরুতর আহত হন।

তবে পুলিশের উপস্থিতির কারণে সেই যাত্রায় প্রাণে রক্ষা পান জানিয়ে রাম প্রসাদ বলেন, ১৬ দিন আগে আমার বাড়িতে হামলা হয়েছে। ওই সময় ভয় পেয়ে আমার বাবা অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং পরের দিনই মৃত্যুবরণ করেন। আজ বাবার আত্মার শান্তির জন্য শ্রাদ্ধের আয়োজন ছিল বাড়িতে, কিন্তু তার আগে ৫০-৬০ জন মিলে বাড়িতে দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালালো। হামলার সময় বাড়ির নারীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আর এখন তো বাজারেও যেতে পারছি না হামলার ভয়ে, ওরা আবার হামলার জন্য ওঁৎ পেতে রয়েছে।

হামলার ঘটনায় আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে জানিয়ে ঈগল প্রতীকের প্রার্থী ও একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য পঙ্কজ নাথ বলেন, আগে কর্মীদের সুস্থ করার কাজটি করছি। সেই সঙ্গে পুলিশ প্রশাসনসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানিয়েছি।

এসব ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, কারও বিরুদ্ধে কথা বলতে চাই না, তবে এখন তো নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি, কখন যে কার ওপর হামলা হবে বলা যাচ্ছে না।

এসব বিষয়ে হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জুবাইর আহমেদ জানান, গত রাতের ঘটনায় মামলা দায়েরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। আর আজকে ধূলখোলার ঘটনায় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়, তবে হামলার খবর আমার জানা নেই।

আলিগঞ্জ বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি রাম প্রসাদের বাড়িতে হামলার বিষয়ে ওসি জুবাইর বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.