Take a fresh look at your lifestyle.

জন্মদিনে মির্জা ফখরুলকে দেখতে কারাগারে স্ত্রী-মেয়ে ও বোন

৯৭

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ৭৭তম জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানাতে এবং দেখা করতে কারাগারে গেছেন তার স্ত্রী রাহাত আরা বেগম, মেয়ে শাফারুহ মির্জা সুমি এবং বোন নাজমা কালাম।

আজ শুক্রবার বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‌‘এবার মহাসচিবের জন্মদিনে কেরানীগঞ্জের কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করতে আমেরিকা থেকে এসেছেন বোন। তাকে নিয়ে দুপুর ১২টার দিকে মহাসচিবের সঙ্গে দেখা করতে কেরানীগঞ্জে যান মির্জা ফখরুলের স্ত্রী ও ছোট মেয়ে। কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করে শুভেচ্ছা জানান তারা।’ 

তিনি জানান, তারা প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা মির্জা ফখরুলের সঙ্গে সময় কাটান। তারা মির্জা ফখরুলের পছন্দের খাবার নিয়ে যান। সঙ্গে একটি কেকও নিয়ে যান।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জন্ম ১৯৪৮ সালের ২৬ জানুয়ারি ঠাকুরগাঁওয়ে। ষাটের দশকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন তিনি।

লেখাপড়া শেষ করে ঢাকা কলেজসহ কয়েকটি সরকারি কলেজে শিক্ষকতা করেন মির্জা ফখরুল। ১৯৮৬ সালে সরকারি চাকরি ছেড়ে পুরোপুরি রাজনীতিতে সক্রিয় হন। ১৯৮৮ সালে ঠাকুরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে জিতে হন চেয়ারম্যান।

মির্জা ফখরুলের জাতীয় রাজনীতিতে হাতেখড়ি আবদুল হামিদ খান ভাসানীর দল ন্যাপে। সেখান থেকেই তার বিএনপিতে যোগদান।

২০০১ সালে বিএনপি নেততৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারে কৃষি প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন মির্জা ফখরুল।

২০১১ সালের মার্চে বিএনপির মহাসচিব খন্দকার দেলওয়ার হোসেনের মৃত্যুর পর মির্জা ফখরুল দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পান। ২০১৬ সালে বিএনপির মহাসচিব নির্বাচিত হন তিনি। তার আগে তিনি দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.